আলোচিত সংবাদ

নভেম্বর থেকে করোনার ‘ট্যাবলেট’ পাবেন রোগীরা!

মুখে খাওয়ার করোনার ‘ট্যাবলেট’ বা পিল মলনুপিরাভির পাচ্ছে ফিলিপাইন। আগামী মাসেই বহুজাতিক ওষুধ প্রস্তুতকারী সংস্থা মেরেকের তৈরি মুখে খাওয়ার তিন লাখ কোভিড ট্যাবলেট ফিলিপাইনে পৌঁছাবে বলে দেশটির লাইসেন্সপ্রাপ্ত আমদানিকারক এবং পরিবেশকরা জানিয়েছেন।

বুধবার ২৭ (অক্টোবর) এ ব্যাপারে ফিলিপাইন স্বাস্থ্য সেবাবিষয়ক পণ্য আমদানিকারক মেডএথিক্সের প্রেসিডেন্ট মোনালিজা সালিয়ান এক সংবাদ সম্মেলনে জানান, দেশের মানুষ চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী মলনুপিরাভির পাবেন।তিনি আরও জানান, করোনা রোগীদের জন্য তিন লাখ ওষুধ আমদানি করা হচ্ছে। মলনুপিরাভ উৎপাদনের প্রথম চালান থেকেই ফিলিপাইন পাচ্ছে বলেও জানান তিনি।

প্রতিটি ওষুধের দাম পড়বে রবে’ থেকে দেড়শ’ ফিলিপাইনি পেসো (বাংলাদেশি মুদ্রায় ১৬০ থেকে আড়াইশ টাকার মধ্যে) নির্ধারণ করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় ওষুধ পরিবেশক ফার্মাসিউটিক্যাল ফার্ম জ্যাকফার্মার প্রেসিডেন্ট মেনেলিও হার্নান্দেজ।ফিলিপাইন ৩১টি হাসপাতালের জন্য মলনুপিরাভিরের ‘সহানুভূতিশীল ব্যবহার’ অনুমোদন করেছে বলে দেশটির খাদ্য ও ওষুধ প্রশাসনের প্রধান রোল্যান্ডো এনরিক ডোমিঙ্গো বুধবার জানিয়েছেন।

রাজশাহী ভদ্রমহিলার আবিষ্কৃত পেটের চর্বি ঝরিয়ে ফেলার দ্রুততম উপায
আরও জানুনঅনুমোদন পেলে মলনুপিরাভির হবে বিশ্বের প্রথম করোনার মুখে খাওয়ার ওষুধ।তবে এখনো অনুমোদনের অপেক্ষায় থাকা এই ওষুধ পাওয়ার জন্য এরই মধ্যে ধনী ও মধ্যম আয়ের দেশগুলোর মধ্যে প্রতিযোগিতা শুরু হয়েছে।

অন্যদিকে, দরিদ্র ও মধ্যম আয়ের দেশগুলোতে করোনার মুখে খাওয়ার ওষুধ মলনুপিরাভির পৌঁছে দিতে জাতিসংঘভিত্তিক সংস্থা দ্য গ্লোবাল মেডিসিন পেটেন্ট পুলের (এমপিপি) সঙ্গে চুক্তি করেছে ওষুধটির প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান মের্ক।

বুধবার জেনেভায় স্বাক্ষরিত এই চুক্তির ফলে শিগগিরই দরিদ্র ও মধ্যম আয়ের ১০৫ টি দেশে মলনুপিরাভিরের জেনেরিক ওষুধ (ভিন্ন নামে একই ওষুধ) পাওয়া যাবে।

চুক্তি স্বাক্ষরের পর এক যৌথ বিবৃতিতে মের্ক ও এমপিপি বলেছে, করোনা মহামারি প্রতিরোধে বিশ্বজুড়ে চিকিৎসা বিষয়ক প্রযুক্তি ছড়িয়ে দিতে এই প্রথম স্বচ্ছ ও জনস্বাস্থ্যকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দেওয়া কোনো চুক্তি স্বাক্ষরিত হলো।

উন্নয়নশীল ও মধ্যম আয়ের দেশসমূহের যেসব ওষুধ কোম্পানি মলনুপিরাভিরের জেনেরিক ওষুধ প্রস্তুত করতে চায়, চুক্তির শর্ত অনুযায়ী তাদেরকে এমপিপির মাধ্যমে এ বিষয়ক অনুমোদনপত্র বা লাইসেন্স সংগ্রহ করতে হবে।

পাশাপাশি, যেসব কোম্পানি মলনুপিরাভিরের জেনেরিক উৎপাদনের অনুমোদনপত্র পাবে, তাদেরকে বিনামূল্যে কারিগরি সহায়তাও সরবরাহ করবে মের্ক ও এমপিপি।

Related Articles

Back to top button
error: Alert: Content is protected !!