আলোচিত সংবাদ

ঘরের কোণে লুকিয়ে ছিল ৬ ফুট লম্বা বিশাল কোবরা নাগরাজ, বাড়ির সবাই ছিল ভয়ে, সাপুড়ে এসে ধরল সাপটিকে তুমুল ভাইরাল ভিডিও।

সাপ দেখলে আমরা সকলেই ভয় পাই। কারণ সাপ একটি ভয়ঙ্কর প্রাণী। সরীসৃপ জাতীয় প্রাণী গুলির মধ্যে সবথেকে বেশি ভয়ঙ্কর তারা। মানুষ বা অন্য কোন প্রাণীকে কখনোই ছেড়ে দেয় না সুযোগ পেলেই ছোবল মারে।

আর তাদের ছোবলে বহু মানুষ এবং প্রাণী মারা যায়। পৃথিবীতে এমন অনেক ভয়ঙ্কর সাপ আছে যাদের ছোবলে ৫ সেকেন্ডের মধ্যে মানুষের মৃত্যু ঘটে যায়। আবার পৃথিবীতে এমন অনেক সাপ আছে যাদের ছোবলে মানুষের কিছু হয় না। কারণ তাদের দেহের বিষের পরিমাণ অনেক কম।
তবে পৃথিবীতে এমন অনেক বিরল মানুষ আছে যারা সাপকে নিজের গৃহপালিত পশু হিসেবে লালন-পালন করে এবং তাদেরকে বড় করে তোলে। তবে ইতিহাসে এমন অনেক ঘটনা আছে যে সাপকে লালন-পালন করার পর সেই সাপের খাদ্য মালিক নিজেই হয়েছে।

ভারতীয় উপমহাদেশে কোবরা জাতীয় সাপের উপদ্রব সবথেকে বেশি। যেখানে সেখানে কোবরা জাতীয় সাপ লুকিয়ে থাকে। গৃহকর্মীদের এবং গ্রামবাসি সকলকে ভয় পাইয়ে দেয়। বিশেষ করে গ্রামাঞ্চলে এই ধরনের কোবরা জাতীয় সাপ মানুষকে অনেক ভয়ে রাখে।ভারতের উত্তরপ্রদেশে এমন অনেক গ্রাম আছে যেখানে হরহামেশাই সাপের উপদ্রব এর খবর শোনা যায়। আর সেই খবর শুনে সাপুড়ে তার দলবল নিয়ে ছুটে যায়। সাপটিকে ধরার জন্য এবং মানুষদের সেই সাপ থেকে রক্ষা করার জন্য।

এরপর তারা সাপটিকে নিয়ে জঙ্গলে ছেড়ে দিয়ে আসে। সাপুরে তাদের নিজস্ব কৌশল ব্যবহার করে এ ধরনের সাপ স্বীকার করে। ভারতের উত্তর প্রদেশের একজন সাপুড়ে আছে।যে সাপের খবর শুনে স্বীকার করতে চলে যায় এবং সেই সাপ ধরার ভিডিও নেট দুনিয়া ছেড়ে দেয় তার এই ভিডিওগুলো এত পরিমাণে ভাইরাল হয় যে এই মানুষ সত্যিই অবাক হওয়ার মতো।

কারণ তার এই ভিডিও গুলোতে প্রায় মিলিয়ন মিলিয়ন মানুষ দেখে। তার এই সাপ ধরার ভিডিও গুলো নেট দুনিয়ায় তুমুল পরিমাণে ভাইরাল হয়ে যায়। আর এই সাপগুলোর ভিডিও এতটাই আকর্ষণীয় যে মানুষকে খুবই বিস্মিত করে ফেলে।আজকে আপনাকে তার এক ভাইরাল হওয়া ভিডিও সম্পর্কে বলব। যেখানে সেই গ্রামের এক ঘরের কোণ থেকে বিশাল বড় এক কোবরা সাপ ধরতে পেরেছে।

আর এই সাপটি গ্রামের ঘরের কোণে অনেকদিন ধরে ঘাপ্টি মেরে লুকিয়ে ছিল যখন গ্রামের লোকজন দেখে বুঝতে পারে এখানে একটি সাপের উপস্থিতি আছে তখন সম্পর্কে খবর দেয় পরে এসে দেখতে পায় এখানে সাপের খোলস পড়ে আছে।এরপর মাটি খুঁড়ে গাছের গুড়ির উঠিয়েনেয়া হয়। এরপর পুনরায় আবার মাটি খুঁড়ে সাপটিকে ওই গর্ত থেকে টেনে বের করে। সাপটি ছিল কোবরা সাপ। সাধারণত ইংরেজি আমরা কোবরা নামে চিনে থাকি। তবে গ্রামাঞ্চলের এ ধরনের সাপ নাগ-নাগিনীর বলে ডাকা হয়।

এই ধরনের সাপ খুবই বিষাক্ত হয়ে থাকে। কোবরা সাপের নাইট্রিক এসিড থাকে। যা মানুষকে একবার কামড় দিলে .৪০ মিনিটের মধ্যে চিকিৎসা না করলে মানুষ মারা যায়।তবে আপনারা ভুল করে কখনো সাপ কামড় দেয়া রোগীকে ঝাড়-ফুক করবেন না। এতে মারা যাওয়ার ঝুকি বেশি থাকে। আপনাকে যদি সাপ কামড় দেয় তাহলে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব নিকটস্থ স্বাস্থ্যকেন্দ্রে গিয়ে সাপের বিষের বিপরীত ইনজেকশন নিয়ে নেয়া।

এরপর যদি প্রয়োজন হয় তাহলে স্যালাইন নিয়ে নিবেন। এখন বের করে নিয়ে আসলো সাপটিকে। যার দৈর্ঘ্য প্রায় আট ফুট। দীর্ঘ এই সাপটি খুবই রাগান্বিত ছিল।যখন সাপটিকে খোলা স্থানে নিয়ে আসা হল তখন সাপুরে সাপটিকে ঠাণ্ডা করার চেষ্টা করছিল, এবং অন্য গ্রামের মানুষদের একটি নির্দিষ্ট দূরত্ব বজায় রেখে দাঁড়াতে বলা হয়েছে। অবশেষে সাপটি শান্ত হয়।

এরপর যখন সাপুড়ের সাপটিকে একটি কৌটায় ভরে নেয়। তিনি সাপটিকে একটি নিরাপদ জঙ্গলে ছেড়ে দিয়ে আসবে। যাতে দেশের সম্পদ নষ্ট না হয় এবং দেশের মানুষগুলো রক্ষা পায়। আপনারা যদি এ ধরনের ভাইরাল হওয়া ভিডিও দেখতে চান তাহলে নিচের লিংকে ক্লিক করতে পারেন।

Related Articles

Back to top button
error: Alert: Content is protected !!