আলোচিত সংবাদ

‘চাচ্চু আম্মুকে মেরে মোবাইল নিয়ে

আশুলিয়ায় প`রকীয়ার পর কুয়েত প্রবাসীর স্ত্রী মারুফা আক্তারকে (২৮) শ্বাসরোধ করে হ`ত্যার পর পালিয়েছে হাসান মিয়া নামে এক যুবক। অভিযুক্ত ওই যুবক নিহত ওই নারীর দেবর বলে জানা গেছে।

বুধবার (৮ ডিসেম্বর) রাত ১০টার দিকে নরসিংহপুর এলাকার ডেকো পোশাক কারখানার সামনের একটি বাড়ি থেকে ওই নারীর ম`রদেহ উদ্ধার করা হয়। নি`হত মারুফা পিরোজপুর জেলার মঠবাড়িয়া থানার জাটিবুনিয়া গ্রামের মোস্তফার মেয়ে।

তার স্বামীর নাম আল-আমিন। আল-আমিন কুয়েত প্রবাসী বলে জানা গেছে। মারুফা স্থানীয় শারমিন গ্রুপের একটি কারখানায় চাকরি করতেন। তার মারজানা নামে একটি ১২ বছরের মেয়ে ও ফাহিম নামে একটি ৬ বছরের ছেলে সন্তান রয়েছে। অভিযুক্ত হাসান (৩০) বরগুনার পাথরঘাটা থানার লেমুয়া গ্রামের জাকির হোসেনের ছেলে। তিনি প্রায়ই মারুফার বাসায় যাতায়াত করতেন।

নি`হতের শিশু পুত্র ফাহিম জানায়, গতকাল হাসান চাচ্চু বাসায় এসেছিল। তিনি আম্মুর সাথে মারামারি করে আম্মুর মোবাইল নিয়ে চলে গেছে। স্থানীয়রা জানায়, তারা সকালে উঠে কাজে চলে যান। ফিরে এসেও দেখেন মারুফা ঘুম থেকে উঠেনি। পরে ঘরে প্রবেশ করে তাকে মৃত অবস্থায় দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দেয়। খবর পেয়ে আশুলিয়া থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।

আশুলিয়া থানার উপপরিদর্শক হাসিব হাসান গণমাধ্যমকে জানান, `স্বামী কুয়েত প্রবাসী। গত পাঁচ মাস আগে চাকরির জন্য এই এলাকায় আসেন। দুই মাস তার মামার সাথে থেকে তৃতীয় মাস থেকে আলাদা বাসা নেন। সেখানে মারুফার মামাতো দেবর হাসানের যাতায়াত ছিল। আমরা খবর পেয়ে নি`হতের ম`রদেহ উদ্ধার করেছি। তিনি আরও জানান, নি`হতের গ`লায় আ`ঘাতের চিহ্ন রয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে গতরাতের কোন এক সময় তাকে শ্বাসরোধ করে হ`ত্য করা হয়েছে। হাসানকে আটকের চেষ্টা চলছে।

Related Articles

Back to top button
error: Alert: Content is protected !!