আলোচিত সংবাদ

পাকিস্তান আমলে বার বার গণতন্ত্রের উপর আঘাত এসেছে: কৃষিমন্ত্রী

কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক বলেন, মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসে টাঙ্গাইলের নাম স্বর্ণাক্ষরে লেখা থাকবে। এই দিনে আমরা টাঙ্গাইলকে হানাদারদের দখল থেকে মুক্ত করি।

স্বাধীন বাংলার পতাকা নিয়ে টাঙ্গাইল শহরে প্রবেশ করি। স্বাধীনতার ৫০ বছর পরেও দেশে স্বাধীনতাবিরােধী শক্তি ও ধর্মান্ধরা সক্রিয় রয়েছে। তারা দেশবিরােধী নানা ষড়যন্ত্র লিপ্ত রয়েছে। দেশের সুনামহানি ও উন্নয়ন অগ্রযাত্রাকে বাধাগ্রস্ত করতে তারা নানা পায়তারা চালাচ্ছে। এদের বিরুদ্ধে সবাইকে সজাগ থাকতে হবে।

টাঙ্গাইলের সখীপুরে ৫০তম টাঙ্গাইল মুক্ত দিবস ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম শতবার্ষিকী ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে ১১ ডিসেম্বর শনিবার উপজেলার বহেড়াতৈল গণ উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে সকাল ১২টায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার চিত্র শিকারীর সার্বিক তত্ত্বাবধানে “বিজয় ৭১ সমাবেশে” অনুষ্ঠিত হয়

সমাবেশে ড. আব্দুর রাজ্জাক বলেন, ধর্মান্ধরা গণতন্ত্রের জন্য হুমকিস্বরূপ উল্লেখ করে ড. রাজ্জাক আরও বলেন, ইতিহাসের দিকে তাকালে দেখা যায় গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার জন্য এ দেশের মানুষকে বার বার আন্দোলন করতে হয়েছে, রক্ত দিতে হয়েছে। পাকিস্তান আমলে বার বার গণতন্ত্রের উপর আঘাত এসেছে। দীর্ঘ আন্দোলন সংগ্রামের পথ পেরিয়েই দেশে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। এ গণতন্ত্র রক্ষায় আমাদের সবাইকে সােচ্চার থাকতে হবে। ধর্মান্ধ ও স্বাধীনতাবিরােধী শক্তি যেন আর কোন দিন ক্ষমতায় আসতে না পারে- এ বিষয়ে সজাগ থাকতে হবে।

টাঙ্গাইল আঞ্চলিক উন্নয়ন কমিটির ব্যবস্থাপনায় বৃহত্তর ময়মনসিংহ সাংস্কৃতিক ফোরাম ও ময়মনসিংহ সমন্বয় পরিষদ এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কৃষিমন্ত্রী ড.মো: আব্দুর রাজ্জাক এমপি, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কেএম খালিদ এমপি, টাঙ্গাইল জেলা আ’লীগ সাধারণ সম্পাদক ও স্থানীয় সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা অ্যাড.জোয়াহেরুল ইসলাম (ভিপি জোয়াহের), প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সাবেক মুখ্য সচিব মো: আবুল কালাম আজাদ।

সাবেক সচিব ও টাঙ্গাইল আঞ্চলিক উন্নয়ন কমিটির চেয়ারম্যান ড.খোন্দকার শওকত হোসেনের সভাপতিত্বে এসময় অন্যান্যদের মধ্যে আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সাবেক সচিব হুমায়ন খালিদ, স্থানীয় সাবেক সংসদ সদস্য অনুপম শাহজাহান জয়, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মোঃ মনছুরুল আলম (হীরা), ব্যুরো বাংলাদেশের নির্বাহী পরিচালক বীর মুক্তিযোদ্ধা জাকির হোসেন, স্বাগত বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রীর একান্ত সচিব ও “বিজয় ৭১সমাবেশ” উদযাপন কমিটির সদস্য সচিব দেওয়ান মাহবুবুর রহমান (বাদল), মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিচারণ মূলক আলোচনা করেন সখিপুর পৌর মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা আবু হানিফ আজাদ, সখিপুর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডের সাবেক কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা এম ও গনি।

শুভেচ্ছা বক্তব্য প্রদান করেন- উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান জুলফিকার হায়দার কামাল,বাংলাদেশ আ’লীগ তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক উপ কমিটির সদস্য প্রকৌশলী আতাউল মাহমুদ, উপজেলা আ’লীগ সভাপতি কুতুবউদ্দিন আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব শওকত শিকদার, প্রস্তাবনা উত্থাপন করেন বৃহত্তর ময়মনসিংহ সমন্বয় পরিষদের মহাসচিব প্রকৌশলী রাশেদুল হাসান শেলী, ঢাকাস্থ সখীপুর উপজেলা সমিতির সাধারণ সম্পাদক মোঃ আজহারুল ইসলামসহ বীর মুক্তিযোদ্ধাগণ, সাংবাদিক, রাজনৈতিক ও সংস্কৃতিক নেতৃবৃন্দ সহ স্থানীয় জনসাধারণ উপস্থিত ছিলেন। আলোচনা শেষে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

Related Articles

Back to top button
error: Alert: Content is protected !!