আলোচিত সংবাদ

ট্রেনে কাটা পড়ে মারা যাওয়া ৪ জনের স্বজনদের চাকরির আশ্বাস

নীলফামারীতে ট্রেনে কাটা পড়ে মারা যাওয়া তিন শিশুর বাবা রেজওয়ান হোসেন ও যুবক শামীম হোসেনের স্ত্রী সুমাইয়া আক্তারকে চাকরি দেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন রেলমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন।

শনিবার (১১ ডিসেম্বর) দুপুর আড়াইটার দিকে সদর উপজেলার কুন্দপুকুর ইউনিয়নের মনসাপাড়া বউ বাজার এলাকায় ওই দুর্ঘটনায় মৃতদের স্মরণে আয়োজিত এক শোকসভায় তিনি এ আশ্বাস দেন। এর আগে মনসাপাড়ার বউ বাজার পৌঁছে দুর্ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন মন্ত্রী।

শোক সভায় রেলমন্ত্রী বলেন, ‘যে ক্ষতি হয়েছে তা পূরণ হওয়ার নয়। তাদের ফিরিয়ে আনাও সম্ভব নয়। যারা স্বজন হারিয়েছেন, তাদের পরিবারের দুই সদস্যকে চাকরি দিতে আমি রেলের জিএমকে নির্দেশ দিয়েছি।’

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, ‘নতুন যেসব রেলপথ হচ্ছে, সেখানে আন্ডারপাস ও ওভারপাস করছি। কিন্তু যেগুলো পুরনো আছে, সেগুলোতে এসব করা সম্ভব নয়। গ্রাম পর্যায়ে যেসব এলাকায় রেল ক্রসিং দরকার, সেগুলো স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় করবে। এ জন্য স্থানীয় সরকারের সঙ্গে আমরা কথা বলছি। আশা করি, দ্রুত বাস্তবায়ন করা হবে।’শোক সভায় জেলা প্রশাসনের পক্ষে রেজওয়ানের পরিবারকে ২৫ হাজার এবং শামীমের পরিবারকে ২০ হাজার টাকার চেক দেওয়া হয়।

এ সময় বক্তব্য রাখেন- জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও নীলফামারী পৌরসভার মেয়র দেওয়ান কামাল আহমেদ। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন- অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) আজাহারুল ইসলাম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মুক্তারুজ্জামান, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুজার রহমান প্রমুখ।

গত বুধবার (৮ ডিসেম্বর) সকাল ৮টার দিকে ওই গ্রামে অরক্ষিত রেলক্রসিংয়ের গেটের সামনে ব্রিজের ওপর ট্রেনে কাটা পড়ে তিন শিশুসহ এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে।নিহতরা হলেন- ওই গ্রামের রেজওয়ানের তিন সন্তান শিমু আক্তার (১০), লিমা আক্তার (৮) ও মমিনুর রহমান (৩) এবং একই এলাকার শামীম হোসেন (৩০)।

Related Articles

Back to top button
error: Alert: Content is protected !!