আলোচিত সংবাদ

‘মানুষের বিষে’ কুকুরের ছটফটানি

গভীর রাত। চারদিক সুনসান। নির্জন রাস্তার পাশে ছটফট করছিল তিনটা কুকুর। এটা দেখে এক পথচারী ফোন দেন স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান এনাম উদ্দিনকে। খবর পেয়েই ঘটনাস্থলে ছুটে যান তিনি। ততক্ষণে দুটি কুকুর কিছুটা স্বাভাবিক হয়ে ওঠে। অন্যটি একটু স্বস্তির জন্য ছোটাছুটি করতে গিয়ে ঝোপের মধ্যে তারে আটকা পড়ে।

অন্যদের সহযোগিতায় কুকুরটিকে তারের ফাঁস থেকে উদ্ধার করা হয়। পরে প্রাণীটিকে সুস্থ করতে রাতভর শুশ্রূষা দেওয়া হয়। ঘটনাটি ঘটেছে বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে মৌলভীবাজারের বড়লেখা উপজেলার দক্ষিণভাগ উত্তর ইউনিয়নের কাঁঠালতলী সাইডিংবাজারে।স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত দেড়টার দিকে কাঁঠালতলী সাইডিংবাজার এলাকায় একজন পথচারী রাস্তার পাশে তিনটি কুকুরকে ছটফট করতে দেখেন। তাৎক্ষণিকভাবে তিনি মুঠোফোনে দক্ষিণভাগ উত্তর ইউপি চেয়ারম্যান এনাম উদ্দিনকে বিষয়টি জানান। সঙ্গে সঙ্গেই ঘটনাস্থলে ছুটে যান চেয়ারম্যান। তিনি এসে দেখেন, একটি কুকুর ঝোপের মধ্যে তারে আটকে ছটফট করছে। অন্য দুটি কুকুরের ছটফটানি কমেছে।

তারে আটকা কুকুরটিকে বাঁচানোর জন্য চেয়ারম্যান প্রথমে প্রাণিসম্পদ অফিসের লোকজনের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করেন। কারও সঙ্গে যোগাযোগ করতে না পেরে ফোন দেন ফায়ার সার্ভিসে। রাত চারটার দিকে ফায়ার সার্ভিসের লোকজন ঘটনাস্থল যান। তার আগেই স্থানীয় লোকজনের সহায়তা নিয়ে চেয়ারম্যান তারে আটকে থাকা কুকুরটিকে উদ্ধার করে কাঁঠালতলী পোস্ট অফিসের সামনে নিয়ে রাখেন। রাতভর চেয়ারম্যান ও স্থানীয় লোকজনের চেষ্টা, শুশ্রূষায় শুক্রবার সকালের দিকে কুকুরটি কিছুটা সুস্থ হয়।

স্থানীয় বাসিন্দা সাঈব আহমদ জানান, কাঁঠালতলী এলাকায় ৮–১০টি কুকুর রাতের বেলায় দল বেঁধে ঘুরে বেড়ায়। কুকুরগুলো শান্ত স্বভাবের। এলাকা পাহারা দেয়। এর মধ্যে কয়েকটি কুকুরকে কে বা কারা বিষ খাইয়েছে বলে শোনা গেছে। এই দলের তিনটি কুকুর রাস্তার পাশে ছটফট করছিল। স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান রাতে এসে কুকুরগুলোকে বাঁচানোর চেষ্টা করেন।

সাঈব আহমদ বলেন, ‘রাতে আমিও কুকুরগুলোকে দেখেছি রাস্তার পাশে ছটফট করতে। এর মধ্যে দুটি মোটামুটি সুস্থ হয়েছে। এর আগে আরও একটি কুকুর মারা গেছে। সেটিকেও বিষ খাওয়ানো হয়েছে বলে শোনা যাচ্ছে। এটি মরে এলাকায় দুর্গন্ধ ছড়াচ্ছে। এই প্রাণীগুলোর কী অপরাধ ছিল, জানি না।’

ইউপি চেয়ারম্যান এনাম উদ্দিন বলেন, ‘রাত দেড়টার দিকে ঘুমিয়েছিলাম। অপরিচিত কেউ একজন ফোন করে জানায় যে কাঁঠালতলী এলাকায় রাস্তার পাশে তিনটি কুকুরকে কে বা কারা বিষ খাইয়েছে। শুনেই ছুটে যাই। গিয়ে দেখি, একটি কুকুর হয়তো তীব্র যন্ত্রণায় ঝোপের মধ্যে লুকিয়েছিল। এর মধ্যেই তারে আটকা পড়েছে। ফায়ার সার্ভিসের লোকজন আসার আগেই আমি স্থানীয় লোকজনের সহায়তায় কুকুরটিকে উদ্ধার করেছি।’ ইউপি চেয়ারম্যান বলেন, ‘কুকুরগুলোর যন্ত্রণা দেখে খুব কষ্ট লেগেছে। কুকুরটিকে বাঁচানোর চেষ্টা করেছি। সবার চেষ্টায় সকালে কুকুরটি উঠে দাঁড়িয়েছে। সকালে প্রাণিসম্পদ থেকেও লোকজন এসেছে।’

বড়লেখা ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন কর্মকর্তা শামীম মোল্লা বলেন, ‘রাতে দক্ষিণভাগ উত্তর ইউপি চেয়ারম্যান জানান, তিনটি কুকুরকে কে বা কারা বিষ খাইয়েছে। এর মধ্যে একটি কুকুর তারে আটকা পড়েছে। ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখি, স্থানীয় লোকজন আগেই কুকুরটিকে উদ্ধার করেছেন।’

Related Articles

Back to top button
error: Alert: Content is protected !!