আলোচিত সংবাদ

আবারও ব্যালটে ‘খালেদা জিয়ার মুক্তি চাই’ সিল

সারাদেশে শান্তিপূর্ণ ভাবে ভোট হয়েছে। চতুর্থ ধাপে ৮৩৮টি ইউনিয়ন পরিষদ ও তিনটি পৌরসভা নির্বাচন রোববার (২৬ ডিসেম্বর) সকাল ৮টা থেকে শুরু হয়ে বিকেল ৪টা পর্যন্ত বিরতিহীনভাবে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। এখন চলছে গণনা।

ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের ৪র্থ ধাপে নোয়াখালীর সদর ও কবিরহাট উপজেলার ১৬টি ইউনিয়নে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। নির্বাচন চলার সময়ে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে ভোটের তিনটি ব্যালট পেপার ভাইরাল হয়। যাতে বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি চেয়ে লেখা ও সিল মারা ছিল। রবিবার বিকাল ৩টার দিকে এমন তিনটি ব্যালট পেপারের ছবি এসে পৌঁছায় গণমাধ্যমকর্মীদের কাছে।

জানা গেছে, সকাল ৮টা থেকে জেলার কবিরহাট উপজেলার ৭টি ইউনিয়নের ৬৬টি কেন্দ্রে একযোগে ভোটগ্রহণ শুরু হয়। সকাল থেকে ভোটারদের ব্যাপক উপস্থিতিতে চলে ভোট গ্রহণ। প্রতিটি কেন্দ্রে ভোটারদের উপস্থিতি ছিল লক্ষণীয়।

বিকালে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে চেয়ারম্যান প্রার্থীদের তিনটি ব্যালট পেপার ভাইরাল হয় যার মধ্যে সুন্দলপুর ইউনিয়নের একটিতে লেখা ছিল ‘খালেদা জিয়ার মুক্তি চাই’নরোত্তমপুর ইউনিয়নের দ্বিতীয়টিতে ছিল ‘বেগম জিয়ার মুক্তি চাই’এবং তৃতীয়টিতে কবিরহাট উপজেলা ছাত্রদলের একটি সিলে লেখা ছিল ‘খালেদা জিয়ার মুক্তি চাই’।

এর আগে, নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে একটি ব্যালট পেপারে ‘খালেদা জিয়ার মুক্তি চাই’ লেখা সিল মারা হয়েছিল।

Related Articles

Back to top button
error: Alert: Content is protected !!