আন্তর্জাতিক

বিশ্বে ২৪ ঘণ্টায় আ'ক্রান্ত কমলেও বেড়েছে মৃ'ত্যু

প্রা'ণঘাতী রোগ করো'নায় গত ২৪ ঘণ্টার ব্যবধানে বিশ্বজুড়ে আ'ক্রান্ত রোগীর সংখ্যা কিছুটা কমেছে, অন্যদিকে মৃ'ত্যুর সংখ্যা বেড়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় এ ভাই'রাসে আ'ক্রান্ত হয়ে মা'রা গেছেন ১০ হাজার ৯৯৬ জন।

আর নতুন করে করো'নায় আ'ক্রান্ত হয়েছেন ৪ লাখ ৮২ হাজার ২২৮। একই সময়ে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৫ লাখ ৬৪ হাজার ১৩ জন।শুক্রবার (৪ জুন) সকাল সাড়ে ৮টায় আ'ক্রান্ত, মৃ'ত্যু ও সুস্থ হয়ে ওঠাদের সংখ্যা বিষয়ক হালনাগাদ সংখ্যা প্রকাশাকারী ওয়েবসাইট করো'নাভাই'রাস ওয়ার্ল্ডোমিটার এ তথ্য জানান।

ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্যানুযায়ী, বিশ্বব্যাপী এখন পর্যন্ত করো'না আ'ক্রান্ত হয়েছেন মোট ১৭ কোটি ২৮ লাখ ৯৩ হাজার ৬২৪ জন। এর মধ্যে মা'রা গেছেন ৩৭ লাখ ১৬ হাজার ৬১৫ জন। আর এখন পর্যন্ত করো'না থেকে সুস্থ হয়েছেন ১৫ কোটি ৫৬ লাখ ৩ হাজার ৭২৩ জন।

বিশ্বে করো'নায় ক্ষতিগ্রস্ত দেশের তালিকায় সবার ওপরে রয়েছে যু'ক্তরাষ্ট্র। দেশটিতে এখন পর্যন্ত করো'নায় আ'ক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন ৩ কোটি ৪১ লাখ ৭৪ হাজার ৭৫২ জন। এর মধ্যে মা'রা গেছেন ৬ লাখ ১১ হাজার ৬১১ জন। আর সুস্থ হয়েছেন ২ কোটি ৮০ লাখ ২৫ হাজার ৫৭৫ জন।

তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে ভা'রত। দেশটিতে এখন পর্যন্ত ২ কোটি ৮৫ লাখ ৭২ হাজার ৩৫৯ জনের করো'না শনাক্ত হয়েছে। মৃ'ত্যু হয়েছে ৩ লাখ ৪০ হাজার ৭১৯ জনের। আর সুস্থ হয়েছেন ২ কোটি ৬৫ লাখ ৮৮ হাজার ৮০৮ জন।
তৃতীয় স্থানে রয়েছে ব্রাজিল। লাতিন আ'মেরিকার দেশটিতে এখন পর্যন্ত করো'নায় আ'ক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন ১ কোটি ৬৮ লাখ ৩ হাজার ৪৭২ জন। মৃ'ত্যু হয়েছে ৪ লাখ ৬৯ হাজার ৭৮৪ জনের। আর সুস্থ হয়েছেন ১ কোটি ৫২ লাখ ২৮ হাজার ৯৮৩ জন।

তালিকায় চতুর্থ স্থানে রয়েছে ফ্রান্স, পঞ্চ'ম স্থানে তুরস্ক, ষষ্ঠ স্থানে রাশিয়া, সপ্তম যু'ক্তরাজ্য, অষ্টম ইতালি, নবম আর্জেন্টিনা এবং দশম জার্মানি।সংক্রমণ ও মৃ'ত্যুর তালিকায় এক ধাপ উপরে উঠে এসেছে বাংলাদেশ। করো'নায় ক্ষতিগ্রস্ত দেশের তালিকায় বাংলাদেশের অবস্থান এখন ৩২তম। দেশে এখন পর্যন্ত ৮ লাখ ৫ হাজার ৯৮০ জন করো'না রোগী শনাক্ত হয়েছেন। এর মধ্যে মা'রা গেছেন ১২ হাজার ৭২৪ জন। আর সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৭ লাখ ৪৬ হাজার ৩৫ জন।

২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের উহানে প্রথম করো'নাভাই'রাস শনাক্ত হয়। দেশটিতে করো'নায় প্রথম রোগীর মৃ'ত্যু হয় ২০২০ সালের ৯ জানুয়ারি। ওই বছরের ১৩ জানুয়ারি চীনের বাইরে প্রথম করো'না রোগী শনাক্ত হয় থাইল্যান্ডে। পরে ধীরে ধীরে বিভিন্ন দেশে ছড়িয়ে পড়ে।

করো'না প্রাদুর্ভাবের পরিপ্রেক্ষিতে ২০২০ সালের ৩০ জানুয়ারি বৈশ্বিক স্বাস্থ্য জরুরি অবস্থা ঘোষণা করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। এরপর ২ ফেব্রুয়ারি চীনের বাইরে করো'নায় প্রথম কোনো রোগীর মৃ'ত্যুর ঘটনা ঘটে ফিলিপাইনে। ওই বছরেরই ১১ মা'র্চ করো'নাকে বৈশ্বিক মহামা'রি ঘোষণা করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।

Back to top button
error: Alert: Content is protected !!