খেলাধুলা

ধর্মের জন্য কাউকে আক্রমণ করা সবচেয়ে দুঃখজনক, কোহলি

ভারতের ক্রিকেটকে আজকের এই উচ্চ পর্যায়ে নিয়ে আসতে যে কয়জন ক্রিকেটার সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়েছেন তাঁর মধ্যে কোহলি অন্যতম। এই পর্যন্ত অনেক রেকর্ড নিজেদের করে নিয়েছেন এই তারকা ক্রিকেটার।

নতুন খবর হচ্ছে, পাকিস্তানের বিপক্ষে হারের পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মোহাম্মদ শামিকে হেনস্তাকারীদের এক হাত নিলেন বিরাট কোহলি। ভারত অধিনায়কের মতে, মেরুদণ্ডহীন কিছু লোক এই বাজে কাজগুলো করে থাকে। ধর্মের কারণে কাউকে ব্যক্তিগতভাবে আক্রমণ করা কোহলির কাছে সবচেয়ে দুঃখজনক ব্যাপার।

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে গত রোববার নিজেদের প্রথম ম্যাচে পাকিস্তানের বিপক্ষে ১০ উইকেটে হারে ভারত। দলটির হয়ে বোলিংয়ে সবচেয়ে খরুচে ছিলেন শামি। ডানহাতি পেসার ৩ ওভার ৫ বলে দেন ৪৩ রান।

ম্যাচের পর শামি নিগ্রহের শিকার হন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে, বিশেষ করে ইনস্টাগ্রামে। এর বেশিরভাগই ‘ইসলামোফোবিয়া’ (ইসলামবিদ্বেষ) এর সঙ্গে সম্পর্কিত। ভারতের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের দলে একমাত্র মুসলিম ক্রিকেটার শামি।বিশ্বকাপে রোববার নিউ জিল্যান্ডের মুখোমুখি হবে ভারত। আগের দিন সংবাদ সম্মেলনে বিষয়টি নিয়ে কথা বলেন কোহলি।

“কেন আমরাই মাঠে নেমে খেলছি এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে (আজেবাজে মন্তব্য করা) মেরুদণ্ডহীন কিছু লোক (সেটা পারছে না), তার একটি যথার্থ কারণ আছে। তাদের আসলে কোনো ব্যক্তির মুখোমুখি হয়ে কথা বলার সাহস নেই। তারা তাদের সত্তার আড়ালে লুকিয়ে থাকে এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অন্যকে আঘাত করে। মানুষকে নিয়ে মজা করা আজকের দুনিয়ার বিনোদনের মাধ্যম হয়ে দাঁড়িয়েছে। যা অত্যন্ত দুর্ভাগ্যজনক এবং দুঃখজনক। কোনো মানুষের মানসিকতা এটার থেকে আর নীচে নামতে পারে না। এই লোকগুলোকে এভাবেই দেখি আমি।”

“আমি আগেও বলেছি, আমার কাছে কাউকে তার ধর্ম নিয়ে আক্রমণ করাটা সবচেয়ে বেশি দুঃখজনক ব্যাপার। প্রত্যেকেরই তাদের মতামত এবং কোনো বিশেষ পরিস্থিতিতে তারা কী ভাবে, তা জানানোর অধিকার আছে। কিন্তু আমি ব্যক্তিগতভাবে এমনকি কখনও ধর্মের কারণে কাউকে বৈষম্য করার কথা ভাবিও নাই। এটি (ধর্ম) প্রতিটি মানুষের কাছে অত্যন্ত ব্যক্তিগত ও পবিত্র বিষয় এবং বিষয়টিকে সেভাবেই দেখা উচিত।”

Related Articles

Back to top button
error: Alert: Content is protected !!